Share to Social network.
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডেক্স রিপোর্ট:

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার জোতবানী ইউনিয়নের তপসি গ্রামে সোমবার ভোরে জ্বর, সর্দি ও শ্বাসকষ্টে কুমিল্লাফেরত মো. ফরহাদ হোসেন (৪০) নামে ব্যক্তি মারা গেছেন। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার নির্দেশনায় মৃতের পরিবারের চার সদস্যসহ ওই গ্রামের ৮৪ বাড়ির সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রেখেছে প্রশাসন।

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার জোতবানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক জানান, ফরহাদ হোসেন কুমিল্লায় কৃষিশ্রমিকের কাজ করতেন। তিনি যে বাড়িতে কাজ করতেন সেই বাড়ির মালিক সৌদিপ্রবাসী। সম্প্রতি তিনি দেশে ফেরার পর ওই বাড়ির সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয় স্থানীয় প্রশাসন। ১০-১২ দিন আগে ফরহাদ জ্বর-সর্দিতে আক্রান্ত হয়ে কুমিল্লা থেকে পালিয়ে বাড়িতে আসেন। এছাড়া তিনি জন্ডিসেও আক্রান্ত হন। কিন্তু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে না গিয়ে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা করাতে থাকেন তিনি। সোমবার ভোরে ফরহাদ মারা যান।

চেয়ারম্যান রাজ্জাক আরও জানান, ফরহাদের মৃত্যুর পর ওই গ্রামে আসা-যাওয়া ঠেকাতে গ্রামপুলিশের পাহারা বসানো হয়েছে। উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সহায়তায় দুপুরে তার লাশ দাফন করা হয়।

বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো. সোলায়মান হোসেন মেহেদী জানান, মৃত ব্যক্তির দেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। সেটি ঢাকার আইইডিসিআরে পাঠানো হবে। তাকে গোসল করানো চার ব্যক্তিকে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এছাড়া ওই গ্রামের সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।