মুলাদী উপজেলা জাপা সাধারণ সম্পাদক পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে শ্লিলতাহানির অভিযোগে থানায় মামলা

Share to Social network.
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
মুলাদী উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার ৯নং ওয়র্ডের কাউন্সিলার বিরুদ্ধে বাড়ীতে প্রবেশ করে হামলা ও শ্লিলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে সহযোগীদের বিরুদ্ধে। জানাগেছে, মুলাদী পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের
চরডিগ্রী গ্রামের মৃত মহব্বত আলী বাঘার পুত্র সেকান্দার বাঘার প্রতিবেশি মজিবর রহমানের স্ত্রী সুলতানা বেগমের সাথে স্থানীয় নাসির বাঘা ও হিমু বাঘার পুর্বথেকেই বিরোধ চলে আসছিল। সুলতানা বেগমের স্বামী ঢাকায় থাকার সুবাধে তারা বিভিন্ন সময় তাকে কু-প্রস্তাব সহ তাহার নামে বিভিন্ন ভাবে বদনাম ছড়ানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। উক্ত ঘটনায় সুলতানা বেগম বাদী হয়ে নাসির বাঘা ও হিমু বাঘা গংদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করে এবং পরবর্তিতে নাসির বাঘা গংরাও সুলতানা বেগম ও সেকান্দার আলী বাঘা গংদের জড়িয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করে। উক্ত অভিযোগের ভিত্তিতে মুলাদী থানা পুলিশ তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে গেলে নাসির বাঘা ও তার লোকজন বাদীকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি প্রদান করেন। এরই জেরধরে গত ৩ মে বিকাল সাড়ে চারটার দিকে প্রতিপক্ষের মৃত হাচেন আলী সরদারের পুত্র মুলাদী উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক, পৌরসভার ৯নং ওয়র্ডের কাউন্সিলার আরিফ সরদার, জিয়াউল হকের পুত্র আজিজুল মিশু, জব্বার হাওলাদারের পুত্র জাহিদ হোসেন খোকন, মিরাজ হাওলাদার, নাসির বাঘা, হিমু বাঘা, রফিক রাড়ী, রাসেল আকন সহ আরও ৪/৫জন লোক সিকান্দার আলী বাঘার বাড়ীতে প্রবেশ করে কথা কাটাকাটি শুরু করলে একপর্যায়ে সকলে মিলে সেকান্দার আলী বাঘার উপর চড়াও হয়ে তাকে মারপিঠ করে বলে । তার ডাকচিৎকারে তাহার পুত্র শিমুল বাঘা ছুটে আসলে তাকেও মারপিঠ করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এছাড়াও সেকান্দার আলী বাঘার মেয়ে সিমা আক্তার দৌড়ে ছুটে আসলে তাকেও মারপিঠ করে শ্লিলতাহানি করেন কাউন্সিলর ও জাতীয় পার্টির সম্পাদক আরিফ হোসেন সরদার ও আজিজুল মিশু বলে অভিযোগ করেছেন সেকান্দার বাঘা। এঘটনায় সেকান্দার আলী বাঘা বাদী হয়ে অভিযুক্তদের আসামী করে মুলাদী থানায় মামলা দায়ের করেছেন । মুলাদী থানার মামলা নং ০৩/২০।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *