ছোটদের বড়রা যে জ্ঞান দিবেই?

0
86

নিউজ ডেস্ক : আজকাল অধিকাংশ পরিবারই নিউক্লিয়ার পরিবার। পরিবারের সদস্যরাও নিজেদের নিয়েও ব্যস্ত। কিন্তু একটা অনুষ্ঠান বাড়ি হলেও ব্যস আত্মীয়-স্বজনদের একেবারে বিশাল জমায়েত।

আর সেখানেই বয়সে ছোট হওয়ার এত খেসারত দিতে হয় যে অনুষ্ঠান বাড়ি যাওয়া এবং আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করার নামেই গায়ে জ্বর আসে।

ছোট হলেও বড়দের একাধিক প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়, আর না হয় একাধিক জ্ঞান তাদের দিক থেকে ধেয়ে আসে। বয়সে ছোট হওয়ার সংস্কৃতি অনুযায়ী মুখের উপর বড়দের কিছু বলাও যাবে না। তাই অগত্যা অসম্ভব সহ্যশক্তি নিয়ে চলা ছাড়া আর কোনও উপায় নেই।

প্রতিবেদনে আমরা এমনই কিছু বড়দের জ্ঞান ও প্রশ্ন নিয়ে নিয়ে আলোচনা করব যা ছোটদের বিরক্ত করে দেয়।

তুমি ছোট, বুঝবে না

কথায় কথায় এই কথাটা এতই বিরক্তিকর যে কী বলব। আরে, ছোট বলে না বোঝার কি আছে? আরে বাবা বয়সে ছোট হলেও অবোধ তো নই। কেউ ঠিক করে বোঝালে নিশ্চই বুঝবো।

কঠিন কঠিন অ্যালজেবরা, পাটিগণিত, ত্রিকোণমিতির অঙ্কের সমাধান করলাম আর কিনা একটা সামান্য জিনিস বুঝব না? আর যদি আমি নাই বুঝব তাহলে সেই বিষয় নিয়ে আমার সামনে আলোচনার কি প্রয়োজন?

তোর দোষ না, তোদের জেনারেশনটাই তর্কবাগীশ

আরে, বড় বলে ভুল জেনে বসে থাকলেও আমরা ছোট বলে ঠিক জেনেও সেটা শুধরে দিতে পারব না। ভুলটা শুধরে দিতে গেলেই আমরা কি না তর্কবাগীশ। আমরা তর্কবাগীশ হলে বড়রাও তো কম এঁড়ে একগুঁয়ে নয়। নিজেদের ভুলটা মানতেই চান না।

আমি যখন তোমার বয়সী ছিলাম…

হয়তো এই কথাটা শুনলেই সবথেকে বেশি বিরক্তিটা লাগে। জানি জানি, আমার বয়সে আপনার জীবন অনেক কঠিন ছিল, তোমরা যা হাতে পাচ্ছ তার কদর করছ না ইত্যাদি ইত্যাদি। আমরা ৫ টাকায় দিয়ে গোটা দিন চালিয়ে দিতাম আর এখন তোমাদের তো একদিনে ১০০০ টাকাও কম পরে। আরে দাদু/দাদি তখন বাসের ভাড়া ১০ পয়সা ছিল, এখন সেটা ১০ টাকা, আগে ফুচকা ১০ পয়সায় পাওয়া যেত…কিন্তু এখন সেই যুগের দাম কোথায় পাই…!

এখনও প্রেম করার বয়স হয়নি তোমার..

মণীষীরা বলে গিয়েছেন প্রেমের কোনও বয়স হয় না, কিন্তু আমাদের বড়দের তা বোঝাবে কে? প্রেম ভালবাসার কথা শুনলে সবার প্রথমেই তো বয়সটাকেই টেনে আনে। উফ বড়ই বিরক্তিকর।

এখন বুঝবে না…

যখন আমার বয়সে পৌঁছবে তখন আমার কথার মর্ম বুঝবে আরে আপনি যখন এতই আত্মবিশ্বাসী যে আমি এখন বুঝব না তাহলে নিজের আর আমার সময় কেন নষ্ট করছেন। আপনার বয়সে পৌঁছতে আমার ঢের দেরি। পৌঁছে গেলে নয় তখন আপনা আপনিই বুঝে যাব। বড় হয়েও টাইম ম্যানেজমেন্টটা আর এরা শিখলেন না।

ভবিষ্যৎ নিয়ে কী ভাবছ?

সেই মাধ্যমিক থেকে শুরু হয়। এরপর কী ভাবছ কোন বিষয় নিয়ে পড়বে? উচ্চমাধ্যমিকের পর- কী ভাবছ, কোন কলেজে পড়বে? কলেজ পাশ করে যাওয়ার পর, ফিউচার প্ল্যান কি? আরে বাবা এত কথা না বাড়িয়ে আমার উপর ছেড়ে দিন না, আমার বিষয়টা আমি সামলে নেব। এমনিতেও আমার ফিউচার প্ল্যান জেনে আপনার তো আখেরে কোনও লাভ নেই। কী বলেন?

টাকা জমাচ্ছ তো নাকি সবই উড়িয়ে দিচ্ছ?

উফ এটা জাস্ট নেওয়া যায় না। সবে তো চাকরি জীবনের শুরু, আগে কিছুদিন তো এনজয় করব, তারপর নয় সঞ্চয়ের কথা ভাবব। আর আমি টাকা জমালেও তো আপনাকে দিতে যাব না…তাই জেনেই বা কি করবেন আপনি? সময় হলে ঠিক সঞ্চয় শুরু করব। টাকা আবার ওড়ানো কি? টাকা প্রয়োজনে আর শখে খরচ করতে হয়।

কত টাকা মাইনে শুনি?

বয়সে বড় হওয়ার সুযোগ নিয়ে বেতনের বিষয়ে জানতে চাইতেও অনেকের দ্বিধাবোধ হয় না। কিন্তু এক্সিউজ মি…চলতি কথাতেই আছে শোনেননি মেয়েদের বয়স আর ছেলেদের মাইনের সম্পর্কে প্রশ্ন করতে নেই? আজকাল অবশ্য একটু বদল হয়েছে। মেয়েদের ক্ষেত্রেও বয়স জিজ্ঞাসা করা গেলে মাইনের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করতে নেই। জেনেই বা কি করবেন বলুন তো?

LEAVE A REPLY