বরগুনায় বঙ্গবন্ধুর ছবি অবমাননা কারাগারে ইউএনও

0
66
ইমরান হোসাইন, বরগুনা প্রতিনিধি: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি বিকৃত করার অভিযোগে ৫ কোটি টাকার মানহানির মামলায় বরগুনা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তারিক সালমানকে কারাগারে পাঠিয়েছেন বরিশালের একটি আদালত।
গাজী তারিক সালমন বর্তমানে বরগুনা সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।
গতকাল বুধবার বরিশাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন গাজী তারিক সালমন। এসময় আদালতের বিচারক মো. আলী হোসাইন তার জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
এর আগে গত ৭ জুন একই আদালতে জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সৈয়দ ওবায়েদ উল্লাহ সাজু বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন। মামলাটি তখন আমলে নিয়ে নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) গাজী তারিক সালমনের বিরুদ্ধে সমন জারির নির্দেশ দেন আদালত। পরবর্তী তারিখ ধার্য ছিল আজ।
মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী শেখ আ. কাদের মামলার আরজির বরাত দিয়ে জানান, গত ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন যে কর্মসূচির আয়োজন করে তার জন্য আমন্ত্রণ পত্র ছাপানো হয়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি সংবলিত ওই আমন্ত্রণপত্রের কার্ডে যে ছবি ব্যবহার করা হয় তা ছিল বিকৃত এবং কার্ডের শেষের পাতায়।
ওই আমন্ত্রণপত্র হাতে পাওয়ার পর সর্বত্র নিন্দার ঝড় ওঠে তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) গাজী তারিক সালমনের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ৫ কোটি টাকার মানহানির মামলা দায়ের করা হয়।
আইনজীবী শেখ আ. কাদের জানান, আজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) গাজী তারিক সালমন তার আইনজীবীর মাধ্যমে অনিচ্ছাকৃত ভূল উল্লেখ করে জামিনের আবেদন করেন। এসময় জামিন আবেদনের তীব্র বিরোধিতা করেন তিনিসহ অন্য আইজীবীরা। শুনানি শেষে ইউএনও গাজী তারিক সালমনের ব্যাখ্যা যথাযথ মনে না হওয়ায় আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) গাজী তারিক সালমন জানান, গত ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ১৭ মার্চ  উপজেলা প্রশাসন শিশু শিক্ষার্থীদের নিয়ে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ নামে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেন।
চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পুরস্কৃতদের হাতে আকা ছবি ব্যবহার করে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ পত্র ছাপানোর ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। সে অনুযায়ী পুরস্কৃতদের হাতে আকা ছবি ব্যবহার করে ওই আমন্ত্রণপত্র ছাপানো হয়।

LEAVE A REPLY