গুজরাটে রাহুলের গাড়িতে হামলা

0
55

গুজরাটে বন্যা পরিস্থিতি দেখতে গিয়ে কংগ্রেস সহসভাপতি রাহুল গান্ধী আক্রান্ত হলেন। গতকাল শুক্রবার দুপুরে বানসকাঁথা জেলার ধনেরা শহরের লাল চকে একদল লোক তাঁকে কালো পতাকা দেখায় ও গাড়ি লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে। রাহুলের গাড়ির কাচ ভেঙে চুরমার হয়ে যায়। রাজ্য কংগ্রেস সভাপতি ভরত সিং সোলাঙ্কিসহ একজন নিরাপত্তারক্ষী আহত হন। রাহুল অবশ্য অক্ষত আছেন।

কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সুরযেওয়ালা জানান, বিজেপির গুন্ডারা রাহুলকে আক্রমণ করেছে। এই ঘৃণ্য আক্রমণের উপযুক্ত তদন্তের দাবি জানিয়ে কংগ্রেস বলেছে, বিজেপির শীর্ষ নেতাদের উসকানিতেই এই চক্রান্ত। বিজেপির গুন্ডারা রাহুলকে খুন করতে চেয়েছিল। অন্যদিকে বিজেপি মুখপাত্র সম্বিৎ পাত্র বলেছেন, বন্যাকবলিত রাজ্যে রাহুল সস্তার রাজনীতি করতে চাইছেন। তিনি ফটো তুলতে ব্যস্ত। দুর্গত মানুষ এই নাটকবাজি বরদাশত করেনি।

বন্যাপ্লাবিত অঞ্চল পরিদর্শনে রাহুল শুক্রবার গুজরাট পৌঁছান। বানসকাঁথা জেলার কয়েকটি এলাকায় বন্যাদুর্গতদের সঙ্গে কথা বলেন। ছোট ছোট সমাবেশে ভাষণও দেন। ধনেরা শহরের লাল চকে ভাষণ দেওয়ার সময় তাঁকে একদল লোক কালো পতাকা দেখায়। তার জবাব দিয়ে রাহুল বলেন, ‘কালো পতাকা দেখিয়ে আমাকে ঠেকানো যাবে না।’ যাঁরা কালো পতাকা দেখাচ্ছিলেন ও নরেন্দ্র মোদির নামে স্লোগান দিচ্ছিলেন, তাঁদের মঞ্চের সামনে নিয়ে আসার জন্যও তিনি নিরাপত্তারক্ষীদের নির্দেশ দেন। সভা শেষ করে গাড়িতে উঠে এগোতে গেলে আচমকাই তিনি আক্রান্ত হন।

রাহুলের প্রহরায় নিরাপত্তারক্ষী বাহিনী (এসপিজি) থাকলেও গাড়িটি বুলেটপ্রুফ ছিল না। রাহুল বসেছিলেন সামনের আসনে, চালকের পাশে। তাঁর পেছনে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি ভরত সিং সোলাঙ্কি। আচমকাই একটা সিমেন্টের চাঙর রাহুলের ঠিক পেছনের কাচে আছড়ে পড়ে। কাচ ভেঙে যায়। ভরত সিং সোলাঙ্কি আহত হন।  পরে পুলিশও বিক্ষোভকারীদের হটিয়ে দেয়। এক ঘণ্টা পর রাহুল টুইট করে বলেন, ‘মোদির গুন্ডামি আমাদের পিছু হটাতে পারবে না।’ একই সময় টুইট করেন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানি। তিনি বলেন, রাজ্যে মানুষ যখন বন্যায় হাঁসফাঁস করছে, রাহুল তখন পর্যটক হয়ে রাজ্যে এসেছেন। কংগ্রেসের ওপর ক্ষিপ্ত মানুষ তা বরদাশত করছে না।

LEAVE A REPLY