আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ পাবেন সাব্বির

0
8

গেল ২৭ আগস্ট, সোমবার নাসির-সাব্বির-মোসাদ্দেককে নিয়ে বসার কথা জানান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন। তিন দিন পর এসেছে আনুষ্ঠিক ঘোষণা। জাতীয় দলের তিন ক্রিকেটারকে ইতোমধ্যেই ডেকে পাঠিয়েছে ডিসিপ্লিনারি কমিটি। আগামী ১ সেপ্টেম্বর তাদের হাজির হতে বলা হয়েছে বিসিবি কার্যালয়ে।

নাসির-মোসাদ্দেকের বিরুদ্ধে অভিযোগ সুনির্দিষ্ট হলেও সাব্বিরের বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই। কখনো ভক্তকে মারধর, কখনো নারী কেলেঙ্কারি, কখনো ড্রেসিংরুমে সতীর্থের সঙ্গে হাতাহাতি আবার কখনো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভক্তকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি ও হুমকি—এসব অভিযোগের সুনির্দিষ্ট প্রমাণ থাকলেও তাকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিচ্ছে বিসিবি।

৩০ আগস্ট, বৃহস্পতিবার বিসিবি কার্যালয়ে এমনটা জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তিনি মনে করেন, আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ না দিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া ঠিক হবে না।

এ প্রসঙ্গে পাপন বলেন, ‘ওরা কথা বলে নেবে। কথা না বলে, একজনকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ না দিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া ঠিক হবে না। সে জন্য ওরা ডেকেছে। কথা বলে সিদ্ধান্ত নেবে। যেটা হওয়া উচিত, তেমন সিদ্ধান্তই আসবে।’

এদিনই এশিয়া কাপের জন্য ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বিসিবি। ১৫ সদ্যসের এই দলে মোসাদ্দেক ডাক পেলেও জায়গা হয়নি সাব্বিরের। নাসির হোসেন তো ৩১ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াডেও ডাক পাননি। দল থেকে সাব্বিরের বাদ পড়ার কারণ সাম্প্রতিক সময়ে তার সমালোচিত কর্মকাণ্ড! এমনটা ইঙ্গিত দিলেন বোর্ড সভাপতি।

সভাপতি বলেন, ‘সাব্বিরকে তো ডিসিপ্লিনারি কমিটি থেকে ডাকা হয়েছে। এটার পরে সিদ্ধান্ত হবে। আর এখন তো সে স্কোয়াডে নাই, অবশ্য এর তো একটা প্রভাব আছেই।’

বিভিন্ন সময় নারীঘটিত কেলেঙ্কারিতে সমালোচিত হয়েছেন রুবেল হোসেন, নাসির হোসেন, আরাফাত সানি, সাব্বির রহমান ও মোহাম্মদ শহীদের মতো ক্রিকেটাররা। এই তালিকায় সর্বশেষ সংযোজন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। গেল ২৬ আগস্ট যৌতুক নিরোধ আইনে জাতীয় দলের এই ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে মামলা করেন তার স্ত্রী সামিনা শারমিন সামিয়া।

এর কিছুদিন আগেই নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ ওঠে নাসিরের বিরুদ্ধে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নাসির ও এক নারীর ফোনালাপ ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনায় পড়েন তিনি। আর সময়ের আরেক সমালোচিত ক্রিকেটার সাব্বির রহমান যেন সমালোচনার সঙ্গেই বাস করেন।

সর্বশেষ উইন্ডিজ সিরিজে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুকে দুই সমর্থককে হুমকি দিয়ে ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে সমালোচিত হন তিনি। সেই ঘটনার রেশ না কাটতেই মডেল নায়লা নাঈমের সঙ্গে সাব্বিরের ঘনিষ্ঠতা নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন তার ব্যক্তিগত গাড়িচালক।

এর আগেও গেল বছরের ডিসেম্বরে রাজশাহীর শহীদ কামারুজ্জামান স্টেডিয়ামে জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) ম্যাচ চলাকালে কিশোর ভক্তকে পিটিয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ হন সাব্বির। নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি জরিমানা হিসেবে দেন ২০ লাখ টাকা। এখানেই শেষ নয়, বাদ পড়েন বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকেও।

এই ঘটনার আগেও শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ ওঠে সাব্বিরের বিরুদ্ধে। ২০১৬ সালে টিম হোটেলে এক নারী অতিথিকে এনে শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে ১২ লাখ টাকা জরিমানা দেন তিনি।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) সর্বশেষ আসরে সাব্বিরকে ম্যাচ ফি’র অর্ধেক জরিমানা করা হয়। এর সঙ্গে জুটেছে তিনটি ডিমেরিট পয়েন্ট। সে সময় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে মাঠে আম্পায়ারের সঙ্গে বাজে আচরণ করেন সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলা এ ব্যাটসম্যান।

ref- priyo.com

LEAVE A REPLY